ছাটাই প্রত্যাহারের দাবিতে শ্রমিকদের বিজিএমইএ-এর সামনে অবস্থান কর্মসূচি


মো. কামরুজ্জামান :: 15:17 :: Sunday June 21, 2020
সাভার ধামরাই ও গাজীপুরে অবস্থিত রেজা ফ্যাশনস, মেডলার এ্যাপারেলস, ভিনটেক্স, ময়োজ উদ্দিন ও মম গার্মেন্টস কারখানায় অব্যাহতভাবে শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ করে বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধসহ কাজে পূর্নবহল এর দাবিতে বিজিএমইএ ভবন ঘেরাও ও অবস্থান পালন করেন শ্রমিকরা।

২১ জুন রবিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ই এ অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন তারা।

বিজিএমই্ ঘেরাও কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেন, বাংলাদেশ গার্মেন্টস এন্ড শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি রফিকুল ইসলাম সুজন, সাংগঠনিক সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ঠান্ডু, সিনিয়র সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম শামীম,গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সূমিত্র কুমার দাস, শফিউল আলম, মো. দেলোয়ারসহ অন্যন্য শ্রমিক নেতৃবৃন্দৃ্

শ্রমিক নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ঈদুল ফিতরের আগে থেকে রেজা ফ্যাশনের ও মেডলার এ্যাপারেল-এ প্রায় ৭ শতাধিক শ্রমিকদের ছাঁটাই করা হয়। এর এক মাস পার হলেও এখন পর্যন্ত মালিকপক্ষ বিষয়টির কোন সমাধান করেনি।
শ্রমিকরা কলকারখানা অধিদপ্তর, শিল্প পুলিশ, বিজিএমইএ সহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরকে লিখিতভাবে অভিযোগ জানালেও কেউই বিষয়টি সমাধানের কোন উদ্যোগ নেন নি। তাই বাধ্য হয়ে শ্রমিকরা এই অবস্থান পালন করেন।

তারা আরও জানান, অর্থাভাবে এ সব শ্রমিকরা বাসা ভাড়া, দোকান বাকী পরিশোধ করতে পারছে না। এ জন্য অনাহারে অর্ধ হারে দিন পার করছে। অনেককে বাসা থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে বাড়িওযালা। তাই শ্রমিকরা আজ অসহায় হয়ে পড়েছে। এর উপর আবার মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে অনেক শ্রমিককে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আদালত বন্ধের সুযোগে মালিকরা আরও বেপরোয়া হয়ে শ্রমিক ছাটাইয়ে নেমেছেন। তাই শ্রমিক ছাটাই বন্ধ করে, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে ছাটাইকৃত শ্রমিকদের চাকুরীতে পুনবর্হাল ও বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধের দাবি করেন ২১ জুন রবিবার বিজিএমইএ কার্যালয় ঘেরাও করেন।

কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া শ্রমিক নেতারা জানান, একদিকে করোনার থাবা আর এক দিকে মালিকদের থাবা। আর এর মাঝখানে শ্রমিকদের প্রান অতিষ্ঠ। বেশ কিছু পোশাক কারখানায় শ্রমিকদের বেতন না দিয়ে ঈদের আগেই ছাটাই করেছে। আবার ঈদের ছুটি শেষ হওয়ার সাথে সাথেই আবার অব্যাহত ভাবে সম্মিলিত উদ্যোগে শ্রমিক ছাটাইয়ে নেমেছেন মালিকরা। বিষয়টি নিয়ে আমরা সংশ্লিষ্ট দপ্তর গুলোর কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ দেওয়া হলেও তাতে কোনো কাজ হয়নি। তাই আজ সেই শ্রমিকদের নিয়ে বিজিএমইএ ভবন ঘেরাও করা হয়।